অতিজল

১৩ জানুয়ারি , ২০২১ আমরা অনেকেই ছোট বয়স থেকে মা বাবা , পরিবারের লোকজন , এমনকি কিছু ডাক্তারের কাছেও শুনে অভ্যস্ত যে , প্রতিদিন আমাদের প্রচুর প্রচুর জল পান করা উচিত , যত জল পান করবে তত স্বাস্থ্যের পক্ষে ভালো। কিন্তু বলব, এটা একটা সম্পূর্ণ ভুল ধারনা , এবং অতিরিক্ত জল পান করা আমাদের স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর , অনেকেই এটা শুনে আমাকে পাগল ভাবতে পারে কিন্তু আমি শতভাগ নিশ্চিত সব বিশেষজ্ঞ ও ডাক্তারেরা আমার সাথে সহমত হবে।

13 January 2021  ·  2 Minutes  ·  422 words

আমি ডিপ্রেশনে আক্রান্ত!

ধরো আমার দুই বন্ধু, রাম ও রহিম। রাম বেশ খোলামেলা প্রকৃতির, সবার সঙ্গেই চট করে মিশতে পারে, ওর বন্ধুবান্ধবের সংখ্যাও অনেক; অন্যদিকে রহিম একটু অন্তর্মুখী প্রকৃতির, সবার সাথে চট করে মিশতে পারে না, আমাকে ছাড়া ওর তেমন আর কোনো বন্ধু নেই। রাম থাকে যৌথ পরিবারে, বেশ বড়সড় পরিবার, অনেক সদস্য; অন্যদিকে রহিম থাকে ওর মা ও বাবার সাথে একটা বাড়িতে, বুঝতেই পারছো ওদের বাড়িতে তিনজন মাত্র সদস্য।   কদিন আগে শুনলাম ওদের মধ্যে একজন ডিপ্রেশন (অবসাদ) ও এংজাইটি (উদ্বেগে) ভুগছে!

7 March 2021  ·  4 Minutes  ·  822 words

চাপ

৫ জানুয়ারি , ২০২১ মানুষ হল সামাজিক জীব , মানুষ একা একা সমাজহীন ভাবে জীবনধারণ করতে পারে না। বর্তমান ও ভবিষ্যতের অনেক সমস্যারই সমাধান হতে পারত যৌথ পরিবারের মাধ্যমে। কিন্তু বর্তমানের অধিকাংশ পরিবারই ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কণিকা পরিবার। অর্থাৎ নবজাতক তার শিশুকাল থেকেই বেশি বেশি মানুষের সমাগম পাচ্ছে না, তার থাকে শুধু মা-টি ও বাবা-টি এবং খুব বেশি হলে একজন দাদা-টি বা দিদি-টি ফলে তারা ছোট বয়স থেকেই বড় হচ্ছে এক এক অদৃশ্য একাকীত্বের মধ্যে।

5 January 2021  ·  2 Minutes  ·  293 words

মনের রোগে আক্রান্ত সমাজ

সমাজ এখন এক বিপদসঙ্কুল সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে কারণটা করোনা ভাইরাস নয়, বরং মানুষের অজ্ঞতা ও মুর্খামি! করোনা ভাইরাসের প্রকোপ একটু কমতে না কমতেই মানুষজন প্রায় সব স্বাস্থ্যবিধি শিকেই তুলে সর্বত্র ঘোরাফেরা করছে। কিন্তু বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরে করোনা আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে, পাঁচটি রাজ্যে আরও খারাপ অবস্থা, সেখানে লকডাউনও শুরু হয়েছে।   প্রায় একবছর ধরে ঘরবন্দি থেকে মানুষের অবস্থা হয়েছিল খাঁচাবন্দী পাখির মতো। সাথে সাথে প্রকট হয় মানুষিক নানা ব্যধি। আসলে আমাদের সমাজে শারীরিক ব্যধিকে যতটা গুরুত্ব দেওয়া হয়, মানুষিক ব্যধিকে তার সিকিভাগও গুরুত্ব দেওয়া হয়না। মানুষের সংস্পর্শহীন বহুদিন থাকার ফলে, মানুষের মনে নেমে আসে অবসাদ, উদ্বেগ বা একাকীত্বের কালো মেঘ।

27 February 2021  ·  2 Minutes  ·  313 words

সমাজ ও দ্বৈততা ত্রুটি

বর্তমানের আধুনিক মানুষের জন্ম প্রায় ৩ লক্ষ বছর আগে আফ্রিকা থেকে। মানুষের জন্মকাল থেকেই বিভিন্ন সংগ্রাম , পরিবর্তন ও বিবর্তনের মাধ্যমে মানুষ আজকের এই “আধুনিক” মানুষের পর্যায়ে পৌঁছেছে। তবে এই লম্বা সফরে আমাদের মানব সমাজে বিভিন্ন বৈশিষ্ট্যের সংমিশ্রণ গঠেছে। তবে মানব সমাজের সূচনা কাল থেকেই মানুষের মনের গভীরে কিছু ত্রুটিও মিশে রয়ে গেছে - তেমনি একটি ত্রুটি হল দ্বৈততা (Duality) ত্রুটি।  ** ** দ্বৈততা বা Duality জিনিসটা কী? দ্বৈততার উল্লেখ গণিত, সাহিত্য, দর্শন ও বিজ্ঞানে অনেকক্ষেত্রেই পাওয়া যায়। কিন্তু আমাদের এখানে আলোচনার বিষয় হল মানুষের মনের অন্তরে থাকা দ্বৈততার। মানুষের মনের দ্বৈততা কিন্তু কিছুটা অদ্ভুত রকমের, আমাদের চিন্তাভাবনা দ্বৈততা দ্বারা আক্রান্ত , ফলে আমরা কাছে সমস্ত বস্তু, শক্তি ও পদার্থকে একটি জোড়ের সমষ্টি বলে মনে হয় । আমাদের কাছে সমস্ত কিছুই একটি মুদ্রা আর তার আছে মাত্র দুটি পিঠ। যেমন, তাপমাত্রাকে আমরা শুধু দেখি ঠাণ্ডা বা গরম হিসাবে, কোনো মানুষের বা প্রাণীর চরিত্রকে আমরা দেখি দুভাবে ভালো বা খারাপ, কোনো বস্তুর সৌন্দর্যকে আমরা দেখি সুন্দর বা কুৎসিত হিসাবে ইত্যাদি ইত্যাদি। আমরা যদি একটু জোর দিয়ে ভাবি তাহলে সবকিছুই আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি দ্বারা সৃষ্ট। ভালো - খারাপ , ঠাণ্ডা - গরম, আলো-অন্ধকার প্রভৃতি। এখানে প্রতিটি জোড়ার একটি উপাদান ওপর উপাদানের বিপরতি মাত্র। যেমন, ভালো-খারাপ জোড়ের একটি উপদান “ভালো” হল আসলে খারাপের অনুপস্থিতি এবং “খারাপ” হল ভালোর অনুপস্থিতি; ঠাণ্ডা-গরম জোড়ের ঠাণ্ডা হল গরমের অনুপস্থিতি আবার গরম হল ঠাণ্ডার অনুপস্থিতি; আলো-অন্ধকার জোড়ের আলো হল অন্ধকারের অনুপস্থিতি আবার অন্ধকার হল আলোর অনুপস্থিতি।

9 February 2021  ·  4 Minutes  ·  825 words